বৃহস্পতিবার, ০২ Jul ২০২০, ০৩:১৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
রামুতে পাহাড় খেকোদের হামলায় তিন সাংবাদিক আহত করোনা ভাইরাস: ব্যবহৃত মাস্ক-গ্লাভস যত্রতত্র ফেলে যে ক্ষতি করছেন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪১ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৩৭৭৫ কালের আবর্তণে হারিয়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক অপরূপ শিল্পী বাবুই পাখি ও তার দৃষ্টিনন্দন বাসা কক্সবাজার সরকারি কলেজ শিক্ষক পরিষদের পক্ষ থেকে অধ্যক্ষ প্রফেসর এ.কে.এম ফজলুল করিম চৌধুরীর বিদায় সংবর্ধনা রামুকে করোনা মুক্ত রাখতে সফল যোদ্ধা- প্রনয় চাকমা কর্মহীন হয়ে পড়া ৩৫০ টি পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ করলেন ইয়াছমিন আক্তার সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দোকান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত কক্সবাজারের ব্যবসায়ীদের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্ব নিচ্ছে এপিবিএন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দায়িত্ব নিচ্ছে এপিবিএন করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ ৬৪ জনের মৃত্যু, সুস্থ ১৮৪৫
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে শিয়ালের গোস্ত ও কলিজা সহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে শিয়ালের গোস্ত ও কলিজা সহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ২০ কেজি শিয়ালের গোস্ত ও ১০ কেজি কলিজাসহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার সরাইল-বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা পুলিশ তাদের আটক করে।২০ কেজি শিয়ালের গোস্ত ও ১০ কেজি কলিজাসহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার সরাইল-বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা পুলিশ তাদের আটক করে।

আটকৃতরা হলেন- হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মোরাছুড়ি এলাকার মাদু মিয়ার ছেলে আজত আলী (২২) ও একই এলাকার সাবু মিয়ার ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২০)। আটক আরজত আলীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড ও সাদ্দাম হোসেনকে পাঁচ হাজার টাকার জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকার পূর্ব রামপুরা এলাকার আল মেজবান নামে একটি মাংসের দোকান থেকে কম দামে শিয়ালের গোস্ত ও কলিজা কিনে এনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন এলাকার রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাসির গোস্ত বলে বিক্রি করছিল ওই দুই যুবক। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কাউতলি এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে ছয় কেজি গোস্ত ও কলিজা বিক্রি করেছে তারা। সরাইল-বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে বিক্রি করার সময় তাদেরকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে শিয়ালের ২০ কেজি মাংস ও ১০ কেজি কলিজা জব্দ করা হয়।

খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনুল ইসলাম জানান, ভ্রাম্যামাণ আদালতের মাধ্যমে সরাইল উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা প্রিয়াংকা আরজত আলীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। আর সাদ্দাম হোসেনকে পাঁচ হাজার টাকার জরিমানা করা হয়েছে।

শেয়ার করুন...

Design: POS Digital
Shares