সংবাদ শিরোনাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে শিয়ালের গোস্ত ও কলিজা সহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ২০ কেজি শিয়ালের গোস্ত ও ১০ কেজি কলিজাসহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার সরাইল-বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা পুলিশ তাদের আটক করে।২০ কেজি শিয়ালের গোস্ত ও ১০ কেজি কলিজাসহ দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার সরাইল-বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা পুলিশ তাদের আটক করে।

আটকৃতরা হলেন- হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মোরাছুড়ি এলাকার মাদু মিয়ার ছেলে আজত আলী (২২) ও একই এলাকার সাবু মিয়ার ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২০)। আটক আরজত আলীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড ও সাদ্দাম হোসেনকে পাঁচ হাজার টাকার জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকার পূর্ব রামপুরা এলাকার আল মেজবান নামে একটি মাংসের দোকান থেকে কম দামে শিয়ালের গোস্ত ও কলিজা কিনে এনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন এলাকার রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাসির গোস্ত বলে বিক্রি করছিল ওই দুই যুবক। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কাউতলি এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে ছয় কেজি গোস্ত ও কলিজা বিক্রি করেছে তারা। সরাইল-বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে বিক্রি করার সময় তাদেরকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে শিয়ালের ২০ কেজি মাংস ও ১০ কেজি কলিজা জব্দ করা হয়।

খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনুল ইসলাম জানান, ভ্রাম্যামাণ আদালতের মাধ্যমে সরাইল উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা প্রিয়াংকা আরজত আলীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। আর সাদ্দাম হোসেনকে পাঁচ হাজার টাকার জরিমানা করা হয়েছে।

মোহাম্মদ ফরিদ,কক্সবাজার থেকে: রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে বৈধ কাগজপত্র বিহীন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার হয়ে কাজ করছিলেন এমন ১৬ জন বিদেশি নাগরিককে আটক করে র্যাব-৭। ১৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি যৌথ চেকপোস্টে...

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

কক্সবাজার প্রতিনিধি।। পর্যটন নগরী কক্সবাজারের বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন ও পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন। রবিবার (৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কালী বাড়ি, সরস্বতি বাড়ি, বঙ্গপাহাড়,...



Logo

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

 
Shares