সংবাদ শিরোনাম
  • সন্ধ্যা ৬:১১ | ২২শে অক্টোবর ২০১৯ ইং , ৭ই কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ২২শে সফর ১৪৪১ হিজরী

বাংলাদেশী ৬ তরুণীকে ভারত থেকে ফেরত সারাদেশ

ভালো কাজের প্রলোভনে বিভিন্ন সময়ে সীমান্তের অবৈধপথে ভারতে পাচার হওয়া ছয় বাংলাদেশি তরুণীকে ভারত সরকারের দেয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে ভারতীয় পুলিশ।

সোমবার সন্ধ্যা ৬ টায় ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ছয় তরুণীকে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়। জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার নামের একটি এনজিও সংস্থা তরুণীদের পরিবারের কাছে পৌঁছে দিতে নিজেদের জিম্মায় নিয়েছে।

ফেরত আসা বাংলাদেশি তরুণীরা হলেন- গাইবান্ধার মুরশিদা বেগম (২৩), সাতক্ষীরার রাবেয়া খাতুন (২০), বাগেরহাটের নিসাত আক্তার বৃষ্টি (২১), যশোরের কল্পনা গাজী (২৫), সাথি সরদার (২২) ও রহিমা খাতুন (১৮)।

জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের যশোর শাখার তথ্য ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা এবিএম মুহিত হোসেন জানান, সংসারে অভাব-অনটনের কারণে তিন বছর আগে এসব বাংলাদেশি তরুণী দালালের খপ্পরে পড়ে সীমান্তের অবৈধপথে ভারতে যান। অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে। সেখান থেকে মুম্বাইয়ের ‘নবজীবন’ নামে একটি শেল্টার হোম তাদেরকে ছাড়িয়ে নিজেদের আশ্রয়ে রাখে।

পরে দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে বিশেষ ট্রাভেল পারমিট আইনে তাদের দেশে ফেরার ব্যবস্থা করা হয়। রাতেই বেনাপোল পোর্ট থানা থেকে তাদের নিয়ে যশোরে রওনা দিয়েছেন তারা। যশোরে তাদের নিজস্ব শেল্টার হোমে রাখা হবে। পরে তাদের অভিভাবকদের কাছে পৌঁছে দেয়া বলেও জানান তিনি।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাশার জানান, কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে পোর্ট থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি (তদন্ত) সৈয়দ আলমগীর হোসেন জানান, ফেরত আসা ছয় তরুণীকে তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মোহাম্মদ ফরিদ,কক্সবাজার থেকে: রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে বৈধ কাগজপত্র বিহীন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার হয়ে কাজ করছিলেন এমন ১৬ জন বিদেশি নাগরিককে আটক করে র্যাব-৭। ১৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি যৌথ চেকপোস্টে...

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন

কক্সবাজার প্রতিনিধি।। পর্যটন নগরী কক্সবাজারের বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন ও পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন। রবিবার (৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কালী বাড়ি, সরস্বতি বাড়ি, বঙ্গপাহাড়,...



L0go

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

 
Shares