সংবাদ শিরোনাম
  • সকাল ৯:২৭ | ১৮ই জুলাই ২০১৯ ইং , ৩রা শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৪ই জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী

পারিশ্রমিক না দেওয়ায় বিপাকে ‘মনিকর্নিকা’

বিনোদন ডেস্ক:
কঙ্গনা রনৌতের পরবর্তী ছবি ‘মনিকর্নিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি’ মুক্তি পাওয়ার কথা আগামী ২৫ জানুয়ারি। হাতে সময় খুব কম। একদিকে চলছে ছবির শেষ মুহূর্তের শুটিং, অন্যদিকে শুটিং–পরবর্তী সম্পাদনার কাজ। কিন্তু এরই মধ্যে গত বুধবার হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় ছবির শুটিং। কারণ, এই ছবির প্রযোজকের বিরুদ্ধে পারিশ্রমিক বকেয়া রাখার অভিযোগ উঠেছে। বলিউডের চলচ্চিত্র কুশলী ও কারিগরি সহযোগিতা প্রদানকারীদের সংগঠন ফেডারেশন অব ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়িজ (এফডব্লিউআইসিই) অভিযোগ তুলেছে, ‘মনিকর্নিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি’ প্রযোজক তিন মাস ধরে ছবির কুশলী ও দিনমজুরদের পারিশ্রমিক দিচ্ছেন না। মোট দেড় কোটি রুপি পারিশ্রমিক বকেয়া রয়ে গেছে শ্রমিক, কুশলী ও জুনিয়র আর্টিস্টদের।

গত বুধবার ভারতের মুম্বাইয়ের একটি স্টুডিওতে চলছিল ‘মনিকর্নিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি’র শুটিং। তখন চলচ্চিত্র শ্রমিকদের সংগঠনের সদস্যরা হঠাৎ ঢুকে পড়েন সেটে। তাঁদের প্রতিবাদের মুখে ছবির শুটিং বন্ধ হয়ে যায়। এফডব্লিউআইসিইর সাধারণ সম্পাদক অশোক দুবে সে সময় গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, ‘তিন মাস হয়ে গেছে, কিন্তু আমাদের কোনো পারিশ্রমিক পরিশোধ করেনি এ ছবির সংশ্লিষ্টরা। এ ছবির প্রযোজকের কাছ থেকে ৪০ লাখ রুপি পাবেন দিনমজুরেরা। আলোকসজ্জায় কাজ করা কারিগরেরা পাবেন ৯০ লাখ রুপি আর জুনিয়ার আর্টিস্টরা পাবেন ২৫ লাখ রুপি। প্রযোজক কামাল জৈন কথা দিয়েছিলেন অক্টোবরের মধ্যে সবার পারিশ্রমিক পরিশোধ করবেন। কিন্তু নভেম্বরের শুরুর দিকে শেষবার ফোন ধরেছিলেন তিনি। এখন আর ফোনও ধরছেন না। এই ছবি যেন মুক্তি না পায়, এ জন্য আমরা ছবির সম্পাদনাকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে কাজ বন্ধ রাখার অনুরোধ করব। চিঠি লিখব সেন্সর বোর্ডে, যেন আমাদের বকেয়া পরিশোধ না করা পর্যন্ত ছবিটির ছাড়পত্র না দেওয়া হয়।’

কঙ্গনা রনৌত অভিনীত মনিকর্নিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি ছবিটি একের পর এক বিতর্ক ও ঝামেলার মুখে পড়ছে। এর আগে কঙ্গনা ছবির কিছু অংশ পরিচালনার দায়িত্ব নিলে ছবি থেকে বেরিয়ে যান অভিনেতা সনু সুদ। তা ছাড়া বেশ কয়েকবার এ ছবির সেটে ঘটেছে দুর্ঘটনাও। এবার পারিশ্রমিক নিয়ে গণ্ডগোল কত দূর গড়ায়, তা দেখার বিষয়। আদৌ কি ছবিটি মুক্তি পাবে জানুয়ারিতে? সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

মোহাম্মদ ফরিদ,কক্সবাজার থেকে: রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে বৈধ কাগজপত্র বিহীন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার হয়ে কাজ করছিলেন এমন ১৬ জন বিদেশি নাগরিককে আটক করে র্যাব-৭। ১৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি যৌথ চেকপোস্টে...

ফেসবুকে আমাদের সাথে থাকুন



L0go

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

 
Shares